বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বন্ধ হবে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনা!

একজন মোটর সাইকেল চালককে প্রতি মুহূর্তে ভারসাম্য বজায় রেখেই গতির সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রাখতে হয়। গতি বেড়ে গেলে অনেক সময় ভারসাম্য বজায় রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। ফলে মোটর সাইকেল চালকের পড়ে যাওয়ার। আমেরিকার বস মোটর সাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এই সমস্যার সমাধানে এগিয়ে এসেছেন । আমেরিকার বস মোটর মোটরসাইকেল স্ট্যাবিলিটি কন্ট্রোল সিস্টেম (এমএসসি) নামের একটি যন্ত্র তৈরি করেছেন। এই যন্ত্র মোটর সাইকেল চালককে ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করবে। এই প্রযুক্তি ভারসাম্য হারালেও মোটর সাইকেলটিকে পড়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবে। এই প্রযুক্তি র নাম স্ট্যাবিলিটি কন্ট্রোল সিস্টেম (ইএসসি)।শুরুর দিকে এটাকে বলা হত বলা হয়েছিল ‘দ্যা হ্যান্ড অফ গড’। এটি গাড়ির চালকের ভুলভ্রান্তি জনিত দুর্ঘটনার হাত থেকে রেহাই দেয়।

গাড়ির তুলনায় মোটর বাইক বেশি দুর্ঘটনা প্রবণ। এমনকি মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় হতাহতের পরিমানও বেশি। এসব কথা চিন্তা করে বস মোটর সাইকেলের প্রকৌশলীরা ইএসসি প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন। এই প্রযুক্তি র মোটর সাইকেল চালকের ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করবে। মোটর সাইকেলের গতি কমে গেলে ইলেকট্রনিক হ্যান্ড দুই পাশে দুটি চাকার সাহায্যে ভারসাম্য ঠিক রাখবে।

বস মোটর সাইকেলের ভারসাম্য নিয়ন্ত্রণের এই প্রযুক্তি ডুকাতির ১২৯৯ পেনিগেল সুপার বাইক এবং কেটিএম ১১৯০ অ্যাডভেঞ্চার মোটর সাইকেলে ব্যবহার করা হয়েছে। বস অটোমোবাইল কোম্পানির বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের পরিচালক ফ্যাংঙ্ক সেগামবাতি বলেন, ‘বস শুধু মাত্র কম্পিউটার চালিত মোটর সাইকেল প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেননি। এটি মোটর সাইকেল চালককে নিরাপদে রাখবে। এই প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে দুর্ঘটনা অনেকটাই কমে যাবে।’মোটর সাইকেল চালককে প্রতি মুহূর্তে ভারসাম্য বজায় রেখেই গতির সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রাখতে হয়। গতি বেড়ে গেলে অনেক সময় ভারসাম্য বজায় রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। ফলে মোটর সাইকেল নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারেন না চালক।

Leave a Comment