স্থানীয়

উপজেলা প্রশাসনের ফলের ঝুড়ি করোনা রোগীদের জন্য

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনায় আক্রান্ত ১৫টি পরিবারের মধ্যে ফলভর্তি ঝুড়ি বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে সদর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে এবং বাড়িতে চিকিৎসাধীন করোনায় আক্রান্ত পরিবারের সদস্যদের হাতে ফলভর্তি এসব ঝুড়ি বিতরণ করা হয়।

সদর উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১০ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন।

সোমবার বিকেলে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ বড়ুয়া করোনারোগীদের জন্য ফলভর্তি পাঁচটি ঝুড়ি নিয়ে হাসপাতালে যান। এসব ঝুড়ি ইউএনও হাসপাতালের করোনা ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক মো. মোমেন ও মো. নাজমুল হকের হাতে তুলে দেন। এ ছাড়া বাকি ১০টি ফলভর্তি ঝুড়ি করোনায় আক্রান্ত বিভিন্ন এলাকার ১০টি পরিবারের বাসায় গিয়ে পৌঁছে দেওয়া হয়। এসব ঝুড়িতে গরুর দুধ, তরমুজ, আনারস, মাল্টা, কলা, আপেল এবং পেয়ারা ছিল।

এ সময় সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এ বি এম মশিউজ্জামান এবং সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। এ সময় তাঁরা করোনায় আক্রান্ত প্রত্যেকের সঙ্গে মুঠোফোনের মাধ্যমে কথা বলে খোঁজখবর নেন।

ইউএনও পঙ্কজ বড়ুয়া প্রথম আলোকে বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। আজকে ১৫টি ফলভর্তি ঝুড়ি শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে তাঁদের কাছে পাঠানো হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি এবং তাঁদের পরিবারের সঙ্গে আছে। এ ছাড়া যেকোনো ধরনের সমস্যা হলে সঙ্গে সঙ্গে জানানোর জন্য তাঁদের বলা হয়েছে। খবর: প্রথম আলো